রামগঞ্জে মাদ্রাসায় তালা দিয়ে বার্ষিক পরীক্ষা বর্জন শিক্ষার্থীদের

0
501
ছবি: প্রতীকি।

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, রামগঞ্জ, এস এম বাবুল বাবর, ২ ডিসেম্বর: জেলার রামগঞ্জ উপজেলার হযরত শাহ মিরান আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে মাদ্রাসা ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি কর্তৃক জোরপুর্বক বরখাস্ত ঘটনায় সোমবার সকালে মাদ্রাসার শ্রেনীকক্ষে তালা ঝুলিয়ে বার্ষিক পরীক্ষা বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা। এসময় সভাপতি সমর্থিত লোকজন ও শিক্ষার্থীদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আজ সোমবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা ও মাদ্রাসার কয়েকজন শিক্ষক জানান, হযরত শাহ মিরান (র) আলীম মাদ্রাসার ব্যাবস্থপনা কমিটির সভাপতির পছন্দের প্রার্থীকে নিয়োগ না দেওয়ায় বেসরকারী চাকুরী বিধিমালা ১৯৭৯ এর ১৩ (১) ধারা মোতাবেক ১লা ডিসেম্বর বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ এনে মাদ্রাসা অধ্যক্ষ এটি এম আব্দুল্লাহ ভূঁইয়াকে সাময়িক বরখাস্ত করে ব্যাবস্থপনা কমিটির সভাপতি মোঃ নূরুজ্জামান খাঁন।
আজ ২ ডিসেম্বর সোমবার সকালে পূর্বের নির্ধারিত বার্ষিক পরীক্ষা দিতে মাদরাসায় এসে অধ্যক্ষকে বহিস্কারের সংবাদ শুনে শিক্ষার্থীরা শ্রেনীকক্ষে তালা দিয়ে পরীক্ষা বর্জন করে। এসময় অধ্যক্ষকে পুনঃবহাল ও কমিটির সভাপতিকে বহিষ্কারের দাবিতে মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা।
প্রায় ৩ ঘন্টা পর্যন্ত বিক্ষোভ চলাকালীন সময়ে রামগঞ্জ উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) হুমায়ুন রশীদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সংশ্লিষ্ট সকলের সমন্বয়ে বিষয়টির সমাধান আশ্বাস দিয়ে বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীদের শান্ত করেন। এবং মঙ্গলবার থেকে শিক্ষার্থীদের পূর্ব নির্ধারিত পরীক্ষায় অংশগ্রহন নিশ্চিত করেন।
মাদ্রাসা সূত্রে আরো জানা যায়, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সহকারি অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পাওয়া তালিকায় থাকা প্রথম শিক্ষক আব্দুল গাফ্ফারকে নিয়োগ দেয়া হলে সভাপতি আপত্তি জানিয়ে ৩য় অবস্থানে থাকা শিক্ষক এছহাককে নিয়োগ দিতে অধ্যক্ষকে ছাপ প্রয়োগ করে। এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মাদ্রাসাটির অধ্যক্ষ ও সভাপতির মধ্যে দ্বন্ধ চলে আসছে।
রবিবার মাদ্রাসা ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা দেখিয়ে আর্থিক অনিয়মসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত করে ৭দিনের মধ্যে কারন দর্শাতে বলা হয়। এবং ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসাবে একই মাদ্রাসার আরেক শিক্ষক নাজমুল আলমকে দায়িত্ব দেয় কমিটির সভাপতি।
প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ এটি এম আব্দুল্লাহ বলেন, সভাপতির নিজের লোককে পদোন্নতি না দেওয়ায় তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে তাকে বহিস্কার করে ব্যবস্থাপনা কমিটি। তবে তিনি অসুস্থতার কারনে ঢাকায় রয়েছেন বলে জানান।
ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি নুরুজ্জামান খান বলেন, মাদ্রাসার অর্থ আত্মসাতসহ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ রয়েছে। তাই তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে ৭দিনের মধ্যে কারন দর্শাতে বলা হয়েছে।
উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) হুমায়ূন রশীদ বলেন, অধ্যক্ষ ঢাকা থেকে আসলে সংশ্লিষ্ট সকলের সমন্বয়ে বিষয়টি সমাধান করা হবে। মঙ্গলবার থেকে পূর্ব নির্ধারিত পরীক্ষায় শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহন করবে।
অপরদিকে শাহ মিরান আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্তের প্রতিবাদে সোমবার বিকেলে বাংলাদেশে জমিয়াতুল মোর্দারেছিন রামগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি এ এইচ এম মোস্তাক আহম্মেদ, সাধারন সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মুরাদ হাসানসহ নেতৃবৃন্দ ে সৃষ্ট ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, গত ০৮/০৬/২০০৯ ইং তারিখের প্রজ্ঞাপনের ৪১(ঘ)এর ২ উপধারা মোতাবেক সভাপতি বোর্ডর পূর্বানুমোতি ব্যতিত কোন প্রতিষ্ঠান প্রধানকে বহিস্কার করতে পারনে না।
নিউজ: এস এম বাবুল বাবর।