রবিবার মহাষ্টমীতে কুমারী পূজা: নির্বাহী অফিসারের মণ্ডপ পরিদর্শন

0
73

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, লক্ষ্মীপুর, মাহমুদ ফারুক, ৫ অক্টোবর:
চণ্ডীপাঠ বোধন ও দেবীর অধিবাসের মধ্যে দিয়ে শুরু হয়েছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সব থেকে বড় উৎসব দুর্গা পূজা। ষষ্ঠীপূজার পর দিনে থেকে মন্দিরে মন্দিরে বেড়েছে ভক্ত কূলের ভিড়। পাশাপাশি বাজছে ঢাক ঢোল। রবিবার দুর্গা পূজার মূল আকর্ষণ মহাষ্টমী। এদিন মণ্ডপে মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হবে কুমারী পূজা।
শুক্রবার সরেজমিনে উপজেলার রতনপুর শ্রী শ্রী বলদেব মন্দির, সোনাপুর কালী মন্দির ও নন্দনপুর, ডাক্তারবাড়ী মন্দির পরিদর্শন করেছেন রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনতাসির জাহান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পূজা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সমীর রঞ্জন সাহাসহ উপজেলা পূজা পরিষদের সদস্যবৃন্দ।
সবক’টি মণ্ডপে সপ্তমীতেই উৎসবের রং লেগেছে। মণ্ডপগুলোতে দেখা যায় নানা বয়সী পূজারি আর ভক্তদের ভিড়। সকাল থেকেই শুরু হয় সপ্তমী পূজার আনুষ্ঠানিকতা। শুরুতেই বিশেষ রীতি মেনে স্নান করানো হয় মা দুর্গাকে। মা দুর্গার প্রতিবিম্ব আয়নায় ফেলে বিশেষ ধর্মীয় রীতিতে স্নান সেরে, বস্ত্র ও নানা উপাচারে মায়ের পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর দেবীর তৃতীয় চক্ষুদান করা হয়।
নবপত্রিকা প্রবেশ ও স্থাপন শেষে দেবীর সপ্তমী বিহিত পূজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে দেবীর পায়ে ফুলের অঞ্জলি দিয়ে চরণামৃত পান করে দিন শুরু করেন ভক্তরা।
অষ্টমীর সকালে দুর্গা দেবীর মহাষ্টমী বিহিত পূজা প্রশস্তা ও ব্রতোপবাস ও পুষ্পাঞ্জলি হবে।
একই সঙ্গে কুমারী বালিকার মধ্যে শুদ্ধ নারীর রূপ কল্পনা করে তাকে দেবী জ্ঞানে পূজা করবেন ভক্তরা। রাজধানীর গোপীবাগের রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠসহ দেশের বিভিন্ন পূজামণ্ডপে এ পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

হিন্দু শাস্ত্র অনুসারে, সাধারণত ১ থেকে ১৬ বছরের অজাত পুষ্প সুলক্ষণা ব্রাহ্মণ বা অন্য গোত্রের অবিবাহিত কুমারীকে দেবী জ্ঞানে পূজা করার বিধান রয়েছে। কুমারী পূজার বিষয়ে শ্রী রাম কৃষ্ণের কথামৃতে বলা হয়েছে, শুদ্ধাত্মা কুমারীতে ভগবতীর রূপ বেশি প্রকাশ পায় এবং মাতৃরূপ উপলব্ধি করাই কুমারী পূজার উদ্দেশ্য।

নির্বাচিত কুমারীকে মহাষ্টমীর দিন প্রভাতে স্নান করিয়ে নতুন কাপড় পড়ানো হয়। তার কপালে সিঁদুর ও পায়ে আলতা দিয়ে হাতে দেওয়া হয় ফুল। কুমারীকে সুসজ্জিত আসনে বসিয়ে পূজা করা হয়। এ সময় চারদিকে শঙ্খ, ঢাকের আওয়াজ, উলধ্বনি আর দেবী স্তুতিতে মুখরিত হয়ে ওঠে পূজা মণ্ডপ।
বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের হিসেবে এ বছর সারা দেশে ৩১ হাজার ৩৯৮টি স্থায়ী ও অস্থায়ী পূজামণ্ডপে দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
নিউজ: মাহমুদ ফারুক।