লক্ষ্মীপুরে শিশু অপহরণ করে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী

0
113

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, লক্ষ্মীপুর, আনিস কবির, ৫ আগষ্ট:
লক্ষ্মীপুরে মিনহাজ নামে দেড় বছরের এক শিশুকে ঘুম থেকে মধ্যরাতে অপহরণ করে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সোমবার ভোর রাতে টিনসেড ঘরের দরজা খুলে শিশুটিকে অপহরণ করে নিয়ে সকালে মুঠোফোনে পরিবারের কাছে মুক্তিপণ দাবী করা হয় বলে জানান পরিবারের সদস্যরা।
সোমবার ভোররাতে সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের লাহারকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ দিকে ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পুলিশ সুপার ও সদর থানার ওসি।
শিশুটিকে উদ্ধার ও ঘটনার রহস্য উৎঘাটনে পুলিশ কাজ করছে বলে জানান পুলিশ সুপার ড. এইচ এম কামরুজ্জামান। অপহৃত শিশু মিনহাজ লাহারকান্দি গ্রামের রাজমেস্ত্রী মো. মামুন হোসেন ছেলে।
পরিবার সুত্রে জানা যায়, স্থানীয় এলাহী বক্সের বাড়ীর নিজ ঘরে প্রতিদিনের মতো শিশু মিনহাজকে নিয়ে রাজমেস্ত্রী মামুন ও তার স্ত্রী কহিনুর বেগম ঘুমিয়ে পড়ে। ভোর রাতে ঘুম ভাঙ্গলে মা-বাবা দেখেন তাদের শিশুটি বিছানায় নেই। দো-চালা টিনসেড ঘরের দরজাটিও খোলা দেখতে পান এসময়।
সম্ভ্যাব্য সব স্থানে খোঁজ-খবর নিয়ে মিনহাজের সন্ধান পায়নি তারা।
ভোর ৫টার দিকে শিশুর সাথে নিয়ে যাওয়া স্ত্রী কহিনুর বেগমের মুঠোফোনে শিশুর বাবা বাড়ীর একলোকের মুঠোফোন থেকে কল করলে অপরপ্রান্ত থেকে মোবাইলটি রিসিভ করে শিশুটিকে পেতে হলে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়।
খবর পেয়ে সোমবার সকালে ওই বাড়িতে লক্ষ্মীপুরের পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনোয়ার হোসেন, সদর থানার ওসি আজিজুর রহমান মিয়া, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মুশু ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এসময় অপহৃত শিশুর বাবা মামুন হোসেন জানান, ঘুম থেকে উঠে আমার ছেলেটিকে খুজে পাচ্ছিনা। কে বা কাহারা তাকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। এই সময় আমার স্ত্রীর মুঠোফোনটিও নিয়ে গেছে। পরে ওই মুঠোফোন থেকে আমার ছেলেকে ছেড়ে দেবে বলে ৫ লাখ টাকা দাবি করা হয়। তবে তাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তার অবুঝ শিশুকে উদ্ধার করতে প্রশাসনের কাছে করজোড়ে মিনতি করেন তিনি।
পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান জানান, দরজা খুলে ভেতরে প্রবেশের বিষয়টি দেখে মনে হচ্ছে তাদের জানা শোনা লোকজনই এ ঘটনায় জড়িত রয়েছে। শিশুটিকে উদ্ধারের চেষ্টাসহ ঘটনার তদন্ত চলছে।
নিউজ: আনিস কবির।