রামগঞ্জে ১১ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

0
213

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, রামগঞ্জ, বেলায়েত হোসেন বাচ্চু, ৩ আগষ্ট:
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে হটাৎ করেই জ্বরের প্রকোপ দেখা দিয়েছে। তবে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে জানালেও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত ৪ দিনে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত ১১জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। এদের মধ্যে ৭জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্যত্রে নেয়া হয়েছে বলে জানা যায়।
রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র স্টাফ নার্স তানিয়া আক্তার জানান, গত কয়েকদিনে রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জ্বরে আক্রান্ত কয়েকজন রোগী ভর্তি হয়েছেন। এদের মধ্যে ১১জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। তারা হলেন, মোঃ আনোয়ার হোসেন (৩২), মোঃ রুবেল (২৭), মোঃ মুরাদ হোসেন (২৭), মোঃ ইব্রাহীম (১৮), মহসিন (২৪), মোঃ মাসুদ (৪০), মোঃ নাঈম (১৭), রাকিব হোসেন (২২) ও মোঃ হৃদয় (২২)। এদের মধ্যে ৭জনকে তাদের আত্মীয়স্বজনরা চিকিৎসকরা অন্যত্রে নিয়ে গেছেন।
রামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আবুল খায়ের পাটোয়ারী, রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেনের সার্বিক তত্বাবধানে গত কয়েকদিনে রামগঞ্জ পুলিশ ব্যারাক, সরকারী হাসপাতাল, উপজেলা পরিষদ এলাকা, বাস টার্মিনালসহ বিভিন্ন এলাকায় মশক নিধন ঔষধ ছিটিয়েছেন বলে জানা যায়।
এছাড়া বিভিন্ন ইউপির চেয়ারম্যানগণ স্ব স্ব এলাকায় ব্যক্তিগত উদ্যেগে ময়লা আর্বজনা অপসারন, কচুরিপানা পরিস্কারসহ মশক নিধনে ভূমিকা রাখছেন।
রামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আবুল খায়ের পাটোয়ারী বলেন, প্রয়োজনীয় ঔষধ সরবরাহ না থাকায় পৌরসভার সম্পূর্ন এলাকাতে মশক নিধন ঔষধ ছিটানো সম্ভব না হলেও গুরুত্বপূর্ন স্থানগুলোতে ছিটানো হয়েছে।
রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন জানান, ইতোমধ্যে আমরা উপজেলার সবক’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধে প্রচারনা চালিয়েছি। সভা সেমিনার করছি। ডেঙ্গু প্রতিরোধে ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট দফতরে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জানানো হয়েছে।
রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ গুনময় পোদ্দার জানান, রামগঞ্জ সরকারী হাসপাতালে ১১জন রোগীর চিকিৎসা হচ্ছে। অনেকেই চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন। সরকারী হাসপাতালের বাহিরে প্রাইভেট হাসপাতাল কিংবা লক্ষ্মীপুরের বিভিন্ন হসপিটালে চিকিৎসা নেওয়ায় রোগীর সংখ্যা তৈরী করা হয়নি। আমরা প্রতিনিয়ত স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখায় নিয়মিত যোগাযোগ রাখছি।

নিউজ: বেলায়েত হোসেন বাচ্চু।