সফল শিক্ষা উদ্যোক্তা ফরিদ আহমেদ ভূইয়া একাডেমী শিক্ষার আলো চড়াচ্ছে তৃণমূলে

0
81
একাডেমীর একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন, প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ফরিদ আহম্মদে ভূইয়া।

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, রামগঞ্জ, মাহমুদ ফারুক, ২৭ জুলাই:
প্রতিষ্ঠার শুরুতেই প্রথম এইচএসসি পরীক্ষায় শতভাগ পাশের অনন্য রেকর্ড গড়েছে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলায় প্রতিষ্ঠিত ফরিদ আহমেদ ভূইয়া একাডেমি। সমগ্র জেলার মধ্যে এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় শতভাগ পাশ করেছে শুধু এই একাডেমির শিক্ষার্থীরা।
রামগঞ্জ উপজেলার উদয়পুরে প্রায় ৪০ বিঘা জমির উপর নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক পরিবেশে প্রতিষ্ঠিত এবং আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত এই একাডেমির যাত্রা শুরু ২০১৭ সালে।

dav

এটি প্রতিষ্ঠা করেছেন দানবীর খ্যাত বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী জনাব ফরিদ আহমেদ ভূইয়া । এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাড়াও তার নিরলস পরিশ্রমে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গড়ে উঠেছে আধুনিক মানের বেশ কিছু একাডেমিক ভবন, বিজ্ঞানাগার ও সমাজসেবি সংগঠন।
ফরিদ আহম্মদে ভূইয়ার নিরলস পরিশ্রমে অত্র একাডেমি পরিচালিত হয় তাঁর অসুস্থ্য জ্যেষ্ঠ সন্তানের নামে প্রতিষ্ঠিত ‘ আহমেদ আব্দুর রহমান ট্রাস্ট ‘-এর মাধ্যমে।
ফরিদ আহমেদ এই ট্রাস্ট-এর চেয়ারম্যান এবং তার সহধর্মিণী ডা. তাজকেরা খানম ভাইস চেয়ারম্যান ।
ফরিদ আহমেদ তার অর্জিত সম্পদের সিংহভাগই এই প্রতিষ্ঠানের জন্য ব্যয় করেছেন। বৃহত্তর নোয়াখালি জেলার সবচেয়ে নান্দনিক ভবন, অত্যাধুনিক ল্যাবরেটরী, মিলনায়তন ,খেলার মাঠ এবং সম্পূর্ণ আবাসিক এই একাডেমির এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে মোট ৭৮ জন ছাত্রছাত্রী ।
এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৫৫ জন এবং ব্যবসায় বিভাগ থেকে ২৮ জন। এদের মধ্যে ২জন জিপিএ ফাইভ, ৫০ জন জিপিএ ফোর, এ মাইনাস ২২জন এবং ৪জন বি পেয়েছেন।
পরীক্ষার এই ফলাফলে কলেজের অধ্যক্ষ খন্দকার আব্দুল মান্নানসহ সকল শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকরা উৎফুল্ল ও আনন্দিত। যাত্রার শুরুতেই একাডেমির এই সাফল্যে শুধু লক্ষ্মীপুর নয় -বৃহত্তর নোয়াখালী জেলায় ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে ।
বহু ব্যক্তি ও সংগঠন জানিয়েছে অভিনন্দন।
রামগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ভূইয়া জানান, একটি অজপাড়া গাঁ খ্যাত গ্রামে এ ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অবিশ্বাস্য। আর প্রতিষ্ঠার অল্প কয়েকদিন এ প্রতিষ্ঠানের ফলাফল আকাশচুম্বি। আমি আশান্বিত, গৌরবান্বিত। একদিন এ প্রতিষ্ঠান জেলা ও জেলার বাহিরে সুনাম বয়ে আনবে বলে বিশ্বাস করি।
নিউজ: মাহমুদ ফারুক।