ছেলে ধরা গুজবে কান দিবেন না

0
145
রামগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সচেতনতামূলক বক্তব্য রাখছেন, রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, রামগঞ্জ, আবু তাহের ও এম কাউছার, ২৪ জুলাই:
ছেলে ধরা গুজবে কান দিবেন না। সাম্প্রতিক সময়ের বহুল আলোচিত ইস্যু ছেলে ধরা গুজবে কাউকে কান না দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।
এ পর্যন্ত ছেলে ধরার কোন সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। একটি মহল ছেলেধরার গুজব ছড়িয়ে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর চেষ্টা চালাচ্ছে।

dav

তাই এ ধরনের গুজবে কান না দেওয়ার জন্য আহবান জানান তিনি।
বুধবার সকালে রামগঞ্জ এম ইউ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও রামগঞ্জ পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবক ও সাংবাদিকের সাথে এক মতবিনিময়কালে রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ছেলে ধরা গুজব বিষয়ে তিনি আরো বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে একদল দুষ্টবুদ্ধি সম্পন্ন চক্র দেশের রাজধানী থেকে শুরু করে প্রত্যান্ত অঞ্চল পর্যন্ত যে ছেলে ধরা বিষয়টি ভাইরাল করেছে তা সম্পূর্ন মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন, এতে সাধারন মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

dav

আমরা আমাদের শৈশবকালে শুনেছিলাম কোন সেতু বা বড় প্রকল্প নির্মাণে কোন একটি পরিবারের এক মায়ের এক ছেলের বলিদান কিংবা আস্ত একটা ছাগল অথবা গরুর প্রয়োজন হতো।
তাও কতটুকু সত্য আমরা জানতাম না, কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে যারা ফেসবুকে ছেলে ধরা বিষয়টি ভাইরাল করেছে তারা স্পষ্ট উল্লেখ করেছে ২০ থেকে ২৫ এর বছর বয়সী যেকোন ছেলেকে অপহরণ কিংবা মাথা কেটে নেওয়া হচ্ছে।
যদি বিষয়টি সত্য হতো তাহলে জাতীয় গনমাধ্যম থেকে শুরু করে আন্তর্জাতিক গনমাধ্যমে তা উঠে আসতো, তাছাড়া বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মীরা পদ্মাসেতু নির্মান প্রকৌশলীদের সাথে আলাপ করেছে, তারা বিষয়টি মিথ্যা আখ্যা দিয়ে বলেন, যে বা যারা এ বিষয়ে সমাজ তথা দেশে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে তাদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা প্রয়োজন ।

dav

এসময় মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন রামগঞ্জ এম ইউ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ড. মোঃ আবদুল ওয়াদুদ ,রামগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মঞ্জুরুল হক ফারুক, রামগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ ফজলুর রহমান, এসআই জহিরুল ইসলাম সাংবাদিক আবু তাহের, মোঃ ফারুক হোসেন, মোঃ কাউছার হোসেন প্রমূখ।
নিউজ: আবু তাহের ও এম কাউছার হোসেন।