লক্ষ্মীপুরে রামগতিতে সুফির বাজারে শালিস বৈঠকে হামলা: আহত-১০

0
69

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, লক্ষ্মীপুর, ৮জুলাই:
লক্ষ্মীপুরে রামগতির সুফির বাজারে শালিস বৈঠকে প্রতিপক্ষের লোকজনের ওপর হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। হামলায় স্কুল শিক্ষকসহ উভয়পক্ষের ১০জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহতদের মধ্যে স্কুল শিক্ষক ইকবাল হোসেন, রামগতি পৌর ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক সজিবুর রহমান সংগ্রাম, আকরাম হোসেন, মিজানুর রহমান ও মহিউদ্দিনকে রামগতি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও অন্যদের স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।
এদের মধ্যে মিজানুর রহমান,মহিউদ্দিন ও ইকবার হোসেনের অবস্থায় গুরুতর বলে জানিয়েছেন রামগতি উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লক্সের কর্তব্যররত চিকিৎসক। রোববার রাতে সুফির বাজারে এ হামলার ঘটনা ঘটে।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতরা জানায়, সুফির বাজারে তাদের দোকান ঘর নির্মানের কাজ করছিলেন তারা। উক্ত দোকানগর নির্মানের আগে স্থানীয় আবদুর রব সুমন তার লোকজন ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। দাবীকৃত চাঁদার কিছু টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। বাকী টাকা না দেয়ায় শুক্রবার রাতে দোকানের বিদ্যুৎতের মিটারের তার ছিড়ে দেয় আবদুর রব সুমন। এ নিয়ে দু-পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়।
এরই জের ধরে রোববার রাতে সুফির বাজারে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম একটি শালিস বৈঠকের আয়োজন করে। ওই শালিস বৈঠকের মধ্যে আবুল কাশেম, তার ছেলে আবদুর রব সুমনের নেতৃত্বে ৩০/৪০জনের একদল সন্ত্রাসী তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে ১০জন আহত হয় বলে দাবী করেন। এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবীও জানান তারা।
প্রতিপক্ষের আবুল কাশেম জানান, শালিস বৈঠক শুরু না হতে অতর্কিত হামলা চালানো হয় তাদের ওপর। এতে আবদুর রব সুমনসহ আহত হয় ৩জন।
এ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দোষীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করার দাবী জানান রামগতি উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মেজবাহ উদ্দিন ভিপি হেলাল।
শালিস বৈঠকে উপস্থিত চরআলগীর সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম জানান, দু-পক্ষকে নিয়ে শালিস বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে। শালিস বৈঠক শুরু না হতে দু-পক্ষের মধ্যে হামলা, পাল্টা হামলা ও মারামারি শুরু হয়। এতে কয়েকজন আহত হয়। তবে প্রথমে হামলা চালায় আবদুর রব সুমনের লোকজন।
রামগতি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এটিএম আরিচুল হক জানান, এ বিষয়ে এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোপ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
নিউজ: এডমিন।