লক্ষ্মীপুরে উপশম হসপিটালে ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় এমডি আটক

0
293

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, লক্ষ্মীপুর, সাইদুল ইসলাম পাবেল, ৭জুন:
লক্ষ্মীপুরে ভুল চিকিৎসায় বিচিত্রা কর নামে এক প্রসুতির চিত্রাকরের (২৮) মৃত্যুর অভিযোগে হসপিটালের এমডিকে আটক করেছে পুলিশ।
এ ঘটনার প্রতিবাদে হসপিটাল ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন স্বজনরা। বৃহস্পতিবার ( ০৬ জুন) রাত ১০ টার দিকে শহরের উপশম (প্রা:) হসপিটালে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ হসপিটালের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক সাইফুদ্দিনকে আটক করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়। মৃত বিচিত্রাকর পৌর শহরের শাখারী পাড়া এলাকার বাবলু করের স্ত্রী।
পুলিশ ও মৃতের স্বামী বাবলু কর জানায়, সকালে তার স্ত্রী প্রসূতি বিচিত্রাকরকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে হাসপাতালটির গাইনী বিশেষজ্ঞ ডা. বসাক কুমারের নির্দেশে তাকে উপশম প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
বিকালে ওই চিকিৎসক প্রসূতিকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে সিজার করার পর তিনি একটি মেয়ে সন্তান জন্ম দেন। রাত সাড়ে ৮টায় প্রসূতির পেটে ব্যাথা শুরু হলে আবারো তাকে রাত ৯টার দিকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়া হয়। ২য় অপারেশনে কেটে ফেলা হয় তার জরায়ু । চিকিৎসকদের পরামর্শে আমরা কয়েকব্যাগ রক্ত সংগ্রহ করলেও অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ শুরু হলে চিকিৎসকগণ সঠিক চিকিৎসা দিতে ব্যার্থ হওয়ায় রোগীর মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করেন রোগীর আত্মীয়স্বজন।
সিজারের পর রোগীর জরায়ু কেটে ফেলার ঘটনাকে স্বজনরা ভূল চিকিৎসা দাবী করে রোগীর মৃত্যুর প্রতিবাদ জানান। এসময় খবর পেয়ে স্বজনরা হাসপাতাল ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন। অভিযুক্ত চিকিৎসক আত্মগোপন করেন আর কর্তৃপক্ষ হাসপাতালের মুল ফটকে তালা লাগিয়ে দেন।
হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. কাউছার রোগীর মৃত্যুকে স্বাভাবিক ঘটনা বলে জানান, রোগীর বেশ কিছু সমস্যা ছিলো তা আমাদের রোগীর আত্মীয়স্বজনরা বলেন নি। সিজারের পর চিকিৎসক ২য় দফায় জরায়ূ টিউমার অপারেশন করেন।
সদর থানার ওসি মোহাম্মদ লোকমান হোসেন জানান, ভূল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালের এমডিকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
নিউজ: সাইদুল ইসলাম পাবেল।