লক্ষ্মীপুর সরকারী মহিলা কলেজের সীমানা প্রাচীর ঘেঁষে ময়লার বাগাড়!

0
180

আমার লক্ষ্মীপুর ডট কম, লক্ষ্মীপুর, সানজানা বিনতে ছায়েদ, ৮ মার্চ: একটি সরকারী শিক্ষাঙ্গন, মানুষ গড়ার প্রতিষ্ঠান। জাতীকে সুশিক্ষিত করার আশ্রয়স্থান। যেখানে এসে প্রাণবন্ত শিক্ষার্থীরা প্রান ভরে নিঃশ্বাস নেয়। যেখান থেকে জাতীর সূর্য সন্তানরা বিকশিত হয়ে সমাজের উচ্চ পর্যায়ে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। সে রকমই একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলো লক্ষ্মীপুর সরকারি মহিলা কলেজ। যা লক্ষ্মীপুরের একমাত্র সরকারি মহিলা বিদ্যাপীঠ। লক্ষ্মীপুর জেলার প্রানকেন্দ্র উত্তর স্টেশনের পাশে ঢাকা -রায়পুর মহাসড়কের পাশে অবস্থিত।
হাজারো গুনী নারী এই কলেজে পাঠদান করে গেছেন। সারা জেলা এবং বিভাগ পর্যায়েও এই কলেজের সুনাম মাথা উচু করে স্বমহীমায়।
কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ের কিছু চিত্র সত্যি নজরে পড়ার মত। এই কলেজের পাশেই রয়েছে জেলার অন্যতম বড় মধুবন বেকারির কারখানা, রয়েছে বেশ কিছু বড় বড় আবাসিক ভবন ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। স্থানীয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের সকল ময়লা আর্বজনা, এবং আবাসিক ভবনগুলো তাদের দৈনন্দিনের ময়লা পলিথিনে ভরে কলেজ গেট এবং কলেজ গেটের সীমানা প্রাচীর সংলগ্ন খালি জায়গায় ফেলছে।
সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা ও অবহেলার কারনে তা দিনে দিনে বিশাল ময়লার বাগাড়ে পরিনত হয়েছে। যা থেকে ব্যপক হারে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।
কলেজ শিক্ষার্থী শারমিন নীলা জানান, কলেজের এমন মুক্ত আঙ্গিনায় শিক্ষার্থীরা আসে প্রান ভরে নিঃশ্বাস নেওয়ার জন্য। সে কলেজ আঙ্গিনাতে এখনো দাঁড়ানোও যায় না। বেকারির ব্যবহৃত বিভিন্ন পঁচা কেমিকেল এখানে ফেলা হয়, যা মানবদেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। ব্যাপক হারে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে পরিবেশ।
পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও কলেজের মান ফিরিয়ে আনার লক্ষে আমাদের সকলেরই কামনা অতিসত্তর প্রশাষনের সুদৃষ্টি কামনা করছি কলেজ কর্তৃপক্ষসহ স্থানীয় প্রশাসনের।
কলেজের ভাইস প্রিন্সিপল হেলাল উদ্দিন জানান, পৌর কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপে কয়েকবারই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে কিন্তু ব্যবসায়ীরা বার বারই ময়লা আবর্জনা ফেলে পরিবেশ নষ্ট করছে।
এ ব্যপারে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার স্যানেটারি ইন্সপেক্টর ফজলে রাব্বানী জানান, আমরা বেশ কয়েকবার সরকারী মহিলা কলেজের বাউন্ডারী ওয়াল সংলগ্ন স্থানের ময়লা আবর্জনা পরিস্কার করেছি। এছাড়া স্থানীয় এলাকাবাসীকে সতর্ক করে দিয়েছি। তারপরও যদি কেউ এখানে ময়লা ফেলে পরিবেশ নষ্ট করে তাহলে রবিবার ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এ ব্যপারে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ শিপন জানান, পৌরসভার মেয়র মহোদয়ের হস্তক্ষেপে বেশ কয়েকবার লক্ষ্মীপুর সরকারী মহিলা কলেজ এলাকা পরিস্কার করা হয়েছে। স্থানীয়দের সতর্ক করা হয়েছে কলেজ এ এলাকায় ময়লা আবর্জনা না ফেলার জন্য। তারপরও যদি স্থানীয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাসাবাড়ীর লোকরা শুনে বিধিমতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
নিউজ: সানজানা বিনতে ছায়েদ।